সারাদেশ

নোয়াখালীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৩৬ টি মামলা

নোয়াখালীতে টি‌সি‌বি’র পণ্য বিক্র‌য় ও অতিরিক্ত মূল্য বৃদ্ধির বিরুদ্ধে বাজার মনিটরিং ও সামাজিক দূরত্ব বাস্তবায়নে ছয় উপজেলায় ৩৬ টি মামালা ও জরিমানা করা হয়।

২৯ এপ্রিল ২০২০ তারিখে নোয়াখালী জেলা সদর, বেগমগঞ্জ, সেনবাগ, সুবর্ণচর, কোম্পানিগঞ্জ ও হাতিয়া উপজেলায় দন্ডবিধি ১৮৬০, সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নিমূল) আইন ২০১৮ ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ মোতাবেক ৩৬ টি মামলায় সর্বমোট ১,৯০,৭০০/-টাকা জরিমানা করেছেন মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকারী বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণ।

সদর উপজেলার সোনাপুর বাজারে জাহাঙ্গীর স্টোর, মোহাম্মদ স্টোর, হাসান কম্পিউটার ও তাজুল স্টোরকে ২ টি মামলায় ৪,০০০/-টাকা জরিমানা করেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সৈকত রায়হান ও আসাদুজ্জামান রনি।

সুবর্ণচর উপজেলার বাংলা বাজার, আক্তারমিয়ার হাট ও সুইজগেইট এলাকায় ৯টি মামলায় ৭৭,৩০০/- টাকা জরিমানা করেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: আরিফুর রহমান। পণ্য ও সেবার মূল্য তালিকা উল্লেখ না থাকা, অতিরিক্ত দামে পণ্য বিক্রয় ও মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বিক্রয়ের জন্য আক্তারমিয়ার হাটের মো: জামাল কে ৫০,০০০টাকা জরিমানা করা হয় ও বিপুল পরিমান পণ্য সামগ্রী রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করে ধ্বংস করে দেওয়া হয়।

বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে হামজা ট্রেডার্স ও আনোয়ার ট্রেডার্স সহ ১২টি প্রতিষ্ঠানকে ১২টি মামলায় ৯১,২০০টাকা জরিমানা করেছেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সরওয়ার কামাল। টিসিবি’র পণ্য অবৈধভাবে দোকানে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে সংরক্ষণ করায় হামজা ট্রেডার্সকে ৩০,০০০টাকা ও আনোয়ার ট্রেডার্সকে ৫০,০০০টাকা জরিমানা করে ২৩৪লিটার টিসিবি তৈল জব্দ করে সরকারের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা হয়।

সেনবাগ উপজেলার ফকিরহাট বাজার, বকশিরহাট বাজার, চন্দেরহাট বাজার ও দক্ষিণ রাজারামপুর এলাকায় ৫টি মামলায় ফাতেমা ফ্যাশন, কিং স্টার টেইলার্স, সাব্বির স্টোর কে ৭,২০০/-টাকা জরিমানা করেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ক্ষেমালিকা চাকমা।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার আদর্শগ্রাম (চর ফকিরা), চৌধুরী বাজার, বসুরহাট বাজার এলাকায় ৬টি মামলায় ৯,৫০০টাকা জরিমানা করেছেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুপ্রভাত চাকমা।

হাতিয়া উপজেলার আফাজিয়া ও বান্দের গোরা এলাকায় ২টি মামলায় ১৫০০ টাকা জরিমানা করেছেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রেজাউল করিম।

বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, নোয়াখালী জনাব তারিকুল আলম জানান যে, উপজেলা ভিত্তিক জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট অগ্রাধিকার বিষয় যেমন করোনা মোকাবিলায় সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা সহ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি রোধকল্পে, মূল্যতালিকা না টাঙ্গানো,অস্বাভাবিক দাম চাওয়া, ক্রয় ও বিক্রয় মূল্য সম্পর্কে মেমো প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার জন্য নোয়াখালী জেলার সকল বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটদের নির্দেশনা প্রদান করেন।

বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, নোয়াখালী জনাব তন্ময় দাস জানান,  অত্র জেলার জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণকে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে ও সামাজিক দূরত্ব বাস্তবায়নে অধিক সময় নিয়ে জনস্বার্থে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশেনা দেওয়া হয়েছে।

মোবাইল কোর্ট পরিচালনার সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সহযোগিতা করেছেন ব্যাটালিয়ন আনসার নোয়াখালী ও পুলিশ বিভাগ নোয়াখালী।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপিরাইট সুবর্ণবার্তা !!
Close
Close