বাবা-মায়ের সঙ্গে সুন্দর আচরণ করুন

মো. ইব্রাহীম

আমাদের দেশে মা দিবস, বাবা দিবস পালন করা হয়। এই রকম দিবসে দেখি খুব সুন্দর সুন্দর বানী অনেকেই পোষ্ট করেন। দিবসে আমি অনুভব করি আমাদের বাবা মায়ের প্রতি ভালবাসার কোন ঘটতি নেই। আবার মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন ভাবে দেখি অসংখ্য বাবা-মা তাদের ছেলেদের বিরুদ্ধে অভিযোগ। অভিযোগটা কি? তাদের খেতে দেয়না প্রয়োজনীয় জিনিষ-পত্র দেয় না এমনকি সন্তানেরা বাবা মাকে ঘর থেকে বের করে দেয়ার ঘটনা ঘটতে দেখা যায়।

 জিজ্ঞাসাবাদে দেখা যায় সন্তানেরা বলে বাবা মা বাড়িতে পাগলামি করে, আচার ব্যবহার খারাপ করে ইত্যাদি। যে সময় বাবা মা তাদের জন্ম দিয়ে লালন-পালন করে আসছিলো, সে সময় তারা পাগল ছিলোনা, আচার ব্যবহার ভালো ছিলো। যে মাত্র বিয়ে করে ঘরে একখানা বউ আসলো তখন বাবা-মা আর ভাল থাকলোনা, হয়ে গেল খারাপ। এটা গেল নিম্ন পরিবারের সদস্যদের বেলায়।

 উচ্চ পরিবারের বেলায় দেখা যায় মা-বাবা সন্তানের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে কাউকে কিছু না পারে বলতে না পারে সইতে। তখন তারা তাদের একমাত্র আশ্রয়স্থল হিসেবে বেচে নেন বৃদ্ধাশ্রম। আসলে আমরা কি একবারও ভেবে দেখি না যে, এই মা-বাবা না খেয়ে না পরে আমাকে লালন-পালন করে আজকের এই অবস্থানে নিয়ে এসেছেন, এই মা বাবার কারনেই আমি পৃথিবির আলো-বাতাস দেখেছি।

 দিবসে মা-বাবার প্রতি এত ভালোবাসা আমরা দেখাই। অথচ যে মা-বাবা ঘর-বাড়িতে থাকতে পারে না তারাতো কারোনা কারো মা কারো বাবা। তাদের সন্তানেরা বাবা মাকে পগল বলার আগে একবার কি চিন্তা করা উচিত না যে এই মা বাবার কারনে আমি পৃথিবিতে এসেছি। এই পৃথিবির সকল সন্তানদের প্রতি আমার বিনীত অনুরোধ শুধু দিবসে ফেইজবুকে সিমাবদ্ধ না থেকে বাস্তব জীবনে এসে আপনি এখন সন্তান একদিন আপনি বাবা মায়ের কাতারে আসবেন, তখনকার কথাটা একটি বার মাথায় নিয়ে বাবা মায়ের প্রতি সুন্দর আচরণ করবেন কি? বাবা মাকে সন্তুষ্ট রাখতে পারলে মহান সৃষ্টিকর্তা আপনার উপর সন্তুষ্ট হয়ে যাবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

লেখক: পরিদর্শক(তদন্ত), চরজব্বার থানা, সুবর্ণচর, নোয়াখালী।

Updated: June 17, 2020 — 1:58 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *